চৌকাঠ ব্লগ

নতুন জেনারেশন এর ব্লগ

আপনার সুস্বাস্থের জন্য একটি সহজ স্বাস্থ পরিকল্পনা

/
/
/
166 Views
img

দেহের ওজন কমানো বা বাড়ানো আপনার লক্ষ যাই হোক না কেন বাজারে আপনার লক্ষ পুরনের অনেক কিছু পেয়ে যাবেন ওজন বাড়ানোর জন্য ম্যাজিক পিল, চর্বি কমানোর জন্য বিভিন্ন ঔষধ, হার্বাল পন্য, বেল্ট ইত্যাদি। কিন্তু বাস্তবে এসব ব্যাবহারে ফলাফল লাভের দৃষ্টান্ত তেমন একটা দেখা যায় না। আসলে আপনার স্বাস্থ পুরোটাই আপনার জীবনধারার ওপর নির্ভর করে। তাই সুস্বাস্থের জন্য প্রয়োজন একটি পরিকল্পিত জীবন। একটি পরিকল্পিত জীবনধারা পরিচালনা করাটা একেবারে যে সহজ তা বলবো না তবে কিছুটা কষ্ট করে হলেও এ সহজ স্বাস্থ পরিকল্পনা-তে লেগে থাকলে আপনি ফলাফল পেতে বাধ্য। আমরা যারা সারাদিন কম্পিউটার বা অফিসে বসে কাজ করি, তাদের জন্য এগুলো বেশি প্রয়োজন।

সহজ এই পরিকল্পনাটি হলো:

১. বেশি বেশি শাকসবজি খাওয়া এবং

২. প্রতিদিন আনন্দে ও শারিরিক ভাবে সচল থাকা

হ্যা, মাত্র এই দুইটি বিষয় খেয়াল রাখলেই স্বাস্থ আপনার নিজের নিয়ন্ত্রনে রাখতে পারবেন। শাকসবজি খাওয়া বলতে আমি একেবারে নিরামিষ ভোজী হয়ে যাওয়ার কথা বলিনি। তবে চেষ্টা করবেন প্রতিদিন আপনার খাদ্যের অর্ধেক বা তার বেশি অংশ সবুজ শাক-সবজী বা ফলমুল খাওয়ার।

এই পরিকল্পনা অনুসরন করে আপনি রাতারাতি ওজন কমিয়ে ফেলতে পারবেন না এটা ঠিক, তবে আপনার স্বাস্থের অনেক উন্নতি হবে এবং আপনার ওজনও কমবে তবে তা ধীরে ধীরে।

এই সহজ স্বাস্থ পরিকল্পনা সম্পর্কিত কিছু কমন প্রশ্নের উত্তর

১. আমি কি মাংস, মিষ্টি, ফাস্টফুড ইত্যাদি খাওয়া খেতে পারি?

উ: অবশ্যই, তবে তারচেয়েও বেশি সাকসবজি অবশ্যই খাবেন।

২. আমার এলার্জি থাকলে কি করবো?

উ: যে খাবারগুলোতে আপনার এলার্জি রয়েছে সেগুলো বাদ দিয়ে বাকী যে কোনো সাক সবজি খেতে পারেন।

৩. আপনি এত বেশি শাক সবজি খাওয়া কথা কেন বলছেন?

উ: বিভিন্ন গবেষনা দ্বারা প্রমানিত যে শাক সবজিতে প্রোটিন থেকে শুরু করে মানব দেহের জন্য প্রয়োজনীয় সকল উপাদান রয়েছে। শাক সবজি খাওয়ার ক্ষেত্রে কোনো বাধাধারা নিয়ম নেই। প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় শাক সবজি ও সবুজ ফলমুল থাকার মানে হলো আপনি প্রতিদিনই আপনার শরীরের জন্য সবচেয়ে ভালো ও উপকারী জিনিসই খাচ্ছেন এবং এতে ক্ষতির কোনো ভয় নেই।

৪. প্রতিদিন শারিরিক ভাবে সচল থাকা মানে কি বুঝাচ্ছেন?

উ: আপনার যা করতে ভালো লাগে তেমন কিছু করেই আপনি প্রতিদিন কিছুটা সময় অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন। যেমন কিছুটা সময় হাটা বা দৌড়ানো, খেলাধুলা, ব্যায়াম, সাইকেল চালানো (এখন মেয়েরাও পিছিয়ে নেই) সহ যে কোনো শারিরিক পরিশ্রম হয় এমন কোনো কাজ করা।

৫. কতটা সময় এই কাজ করবো?

উ: শুরুতে কম সময় ধরে পরিশ্রম হয় এমন কোনো কাজ বা খেলাধুলা করতে পারেন। এরপর ধীরে ধীরে সময় বাড়াতে পারেন। এমনকি একদম শুরুতে শুধু ৫ মিনিটের ব্যায়ামও অনেক উপকার করতে পারে।

৬. ওজন কমাতে চাইলে কি করবো?

উ: তেল, চর্বি, চিনিযুক্ত খাবার, ময়দা ইত্যাদি যথাসম্ভব পরিহার করুন এবং ফলমুল বেশি করে খান। প্রকৃতভাবে ক্ষুধা লাগলেই শুধু খাবেন এবং খাওয়ার সময় একদম পেট পুরে না খেয়ে কিছুটা হলেও কম খান এবং বেশি বেশি পানি পান করুন এতে ক্ষুধা কমবে।

৭. ওজন বাড়াতে চাইলে কি করবো?

উ: শাকসবজির পাশাপাশি প্রোটিনযুক্ত খাবারের পরিমান বাড়ান। অলিভ ওয়েল, বাদাম, পিনাট বাটার ইত্যাদি প্রোটিনযুক্ত স্বাস্থকর খাবারের উদাহরন। শশ্য জাতীয় খাবারও বেশি করে খান। তবে ওজন বাড়াতে চাইলেও নিয়মিন ব্যায়াম করতে ভুলবেন না।

কৃতজ্ঞতা: রুপসাজ

  • Facebook
  • Twitter
  • Google+
  • Linkedin
  • Pinterest

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This div height required for enabling the sticky sidebar